Responsive Menu
Add more content here...

সহজ ১০টি নতুনদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং কাজ ২০২৩ Easy Freelance Jobs for newcomers 

আজকে আপনাদের জন্য ১০টি সহজ নতুনদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং কাজ বা জব নিয়ে এসেছি যা যে কেউ অল্প অভিজ্ঞতা

দ্বারা করতে পারবে।তো আপনি যদি অনলাইন উপার্জন এর জন্য কিছু সেরা ও সহজ ফ্রিল্যান্সিং জব খুঁজে থাকেন বাড়ি

থেকে করার জন্য বিশেষ কোনো অভিজ্ঞতা ছাড়া। তাহলে তার সমাধান এখানে পাবেন ।আমি জানি যে সবার কাছে কাজ

সংক্রান্ত ও কোনো কর্মসংস্থানের কাজ করার পূর্ব অভিজ্ঞতা থাকে না । বিশেষ করে নতুন যারা ।  কারণ আপনাদের মতোই

আমিও সেই ধাপ দিয়েই হেঁটেছি । তাই একদম বেছে বেছে খুবই সিম্পল কিছু জব ক্যাটাগরি আজ আপনাদের বলবো।

আর আমার বিশ্বাস আপনারা প্রত্যেকেই এই কাজ গুলি করতে পারবেন যদি আপনাদের ফ্রিল্যান্সিং করার ইচ্ছা থাকে।তো আপনাদের আর বেশি সময় নষ্ট করবো না ।

ফ্রিল্যান্সিং

১. ট্রান্সক্রিপশন

 এই ট্রান্সক্রিপশন আবার কিছু ভয়েস ওভার এর বিপরীতও বলতে পারেন । কারণ  Recap এর ক্ষেত্রে আপনাকে কোনো ভিডিও বা

অডিওকে লিখিত ভাবে কনভার্ট বা শব্দে রূপান্তর করতে হয় ।  আর যা কিনা আমার মতে এটি ভয়েস ওভার এর থেকেও কিছুটা সহজ।

আর যা আপনিও অবশ্যই করতে পারবেন ।  তো এই ট্রান্সক্রিপশন ফ্রিল্যান্সিং জব এর ক্ষেত্রে আপনাকে ইন্টারভিউ, পডকাস্ট আরো

বিভিন্ন রকমের অডিওকে আনার নিজের কণ্ঠ দিয়ে রুপান্তর করতে হবে।

২.সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজমেন্ট করা 

 সোশ্যাল মিডিয়া সাইট আমরা সবাই ব্যবহার করি ।  তো এরকম অনেক ছোট বড় কোম্পানি বা ইন্ডিভিজুয়াল এর সোশ্যাল মিডিয়া

প্রোফাইল ও পেজ থাকে আর তা অনেক সোশ্যাল প্লাটফর্মে থাকে ।  আর তাদের পক্ষে একা কখনোই সম্ভব হয়না সমস্ত কিছু হ্যান্ডেল

বা পরিচালনা করা । যেরকম অনলাইন কনটেন্ট পোস্ট বা পাবলিশ করা,  পোস্ট বা কনটেন্ট সিডিউল বা প্রি- পাবলিশ করা এবং

See also  ইসরাইল তথা ইহুদীদের তৈরি পণ্যসামগ্রী ব্যবহার প্রত্যাহারের ঘোষণা এবং কিছু ইসরাইলে তৈরি পণ্য সামগ্রীর নাম

ফলোয়ার্সদের সাথে এনগেজিং থাকা ও তাদের কমেন্ট এর উত্তর দেওয়া ।  তাই এই সমস্ত কাজের জন্য এবং তাদের সোশ্যাল সাইটকে

এনালাইজ করে আরো উন্নত করার জন্য Social Media Manager or Handler খুঁজে থাকে ।  তো আপনার যদি সোশ্যাল মিডিয়া

প্লাটফর্ম গুলি সম্পর্কে একটু ভাল পরিচয় ও অভিজ্ঞতা থাকে তাহলে আপনিও এই কাজ করতে পারেন । 

৩.ট্রান্সলেশন বা অনুবাদ

 ফ্রিল্যান্সিং সাইটের আরো একটি ডিমান্ডেড এবং সহজ কাজ হল এই ট্রান্সলেশন বা অনুবাদকারীর জব ।  এখানে আপনাকে কোনো

একটি লিখিত উপকরণ যেরকম ওয়েবসাইট কনটেন্ট, আর্টিকেল, ডকুমেন্টস অথবা অন্য কোনো  লেখাকে, ক্লাইন্ট এর প্রয়োজন

অনুযায়ী ভাষায় লিখে রূপান্তর বা অনুবাদ করতে হবে । আপনি বাংলা সহ আরো অনেক ভাষার restatement job পেয়ে যাবেন । 

তো যাদের বাংলার সাথে সাথে আরো অন্যান্য ভাষা জানা আছে তারা এই কাজটিকে করতে পারেন ।

৪. প্রুফরিডিং

 Proofreading কথার অর্থ হল যে কোনো লিখিত উপকরণকে রিভিউ করা । যেরকম সেখানে  কোনো বানান, ব্যাকরণ ও বিরাম চিহ্নের

ত্রুটি বা ভুল আছে কিনা । আর এটি আপনি বিভিন্ন ক্ষেত্রের জন্য করতে পারেন ।  যেমন আর্টিকেল বা ওয়েবসাইট কনটেন্ট এর জন্য,

ফিল্ম বা ডকুমেন্টরী স্ক্রিপ্ট এর ক্ষেত্রে, এবং বই সহ আরো বিভিন্ন বিষয়ে ।  ফ্রিল্যান্সিং প্লাটফর্মে বাংলা লিখিত উপকরণের জন্য অনেক

প্রুফরিডিং চাহিদা আছে আর যা দিন দিন আরো বাড়ছে ।  তার সাথে যদি আপনার আরো বেশ কিছু ভাষা সম্পর্কে ভালো ভাবে জানা

থাকে তাহলে তো তা অবশ্যই আপনার জন্য একটি প্লাশ্ পয়েন্ট ।  

৫. ভয়েস ওভার

Voice over সম্পর্কে নতুন করে কিছুই বলার নেই । কারণ আমরা অল্প বেশি সবাই জানি যে  এখানে একটি নারেশন বা স্ক্রিপ্ট

প্রদান করা হয় যেটিকে আমাদের কণ্ঠস্বর বা কথা দিয়ে বলতে হয় । তো আপনার  যদি নিজের মাতৃ ভাষার সাথে সাথে আরো

See also  শীতে সুস্থ থাকতে এইসব পানীয় পান করুন

বেশ কিছু ভাষায়ভালো ভাবে কথা বলার প্রতিভা থাকে তাহলে আপনি এই ফ্রিল্যান্সিং কাজটি করতে পারেন ।  তবে স্বাভাবিক ভাবেই আপনার অবশ্যই

একটু ভালো করে কথা বলার প্রতিভা থাকতে হবে । আর এখন তো আমাদের  বাংলা ভাষার ভয়েস ওভার করানো জন্যও বহু দেশ ও

বিদেশ থেকে বিভিন্ন কোম্পানি ফ্রিল্যান্স সাইটে ডিমান্ড রয়েছে। 

 ৬. ভিডিও এডিটিং বা সম্পাদন

ভিডিও এডিটিং জব এখন উচ্চ ডিমান্ডেড জব ক্যাটাগরি গুলির মধ্যে একটি ।  ফ্রিল্যান্স এর পাশাপাশি ইন অফিস বা অফলাইন সমস্ত

জায়গায় এর প্রচুর চাহিদা । তো আপনার যদি অল্প কিছুও  ভিডিও এডিটিং এর অভিজ্ঞতা থেকে থাকে । তাহলেও আপনি ফ্রিল্যান্সিং করতে

পারেন । কারণ এখানে হাই ও প্রফেশনাল  লেভেল এর এডিটিং ছাড়াও একদম বেসিক এডিটিং কাজও আপনি পেয়ে যাবেন।

আর যার জন্য যথেষ্ট ভালো পারিশ্রমিক পাওয়ার সুযোগ আছে ।  এছাড়াও অনলাইন শেখার সাইট ও ইউটিউবে এরকম অনেক

টিউটোরিয়াল আছে যা দেখে আপনি ভিডিও এডিটিং শিখেও নিতে পারেন । 

 ৭. ভার্চুয়াল অ্যাসিস্ট্যান্স

পার্সোনাল অ্যাসিস্ট্যান্স ও ভার্চুয়াল অ্যাসিস্ট্যান্স এর মধ্যে বিশেষ কোনো পার্থক্য নেই  শুধু একটিতে আপনাকে শারীরিকভাবে

অফিস এর মধ্যে থেকে সমস্ত অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ ও যাবতীয় কাজ গুলি দেখাশোনা ও করতে হয় ।  সেখানেই ওপর দিকে

Virtual  backing হিসাবে আপনি সেই একই কাজ রিমোটলি অর্থাৎ আপনি নিজের বাড়ি থেকেই করতে পারেন । 

এই Virtual  backing এর মধ্যে বিভিন্ন রকমের কাজ পরে যেরকম ফোন কলস, ইমেইল সামলানো ও কাস্টমারদের গাইড করা ।

  এবং বাকি সমস্ত অফিসিয়াল কাজ গুলি । এটি ছেলে ও মেয়ে উভয়েই সহজে করতে পারেন । যার জন্য স্পেশাল দক্ষতার বিশেষ প্রয়োজন নেই । 

৮. কাস্টমার সার্ভিস

ছোট থেকে বড় যেকোনো কোম্পানি বা সংস্থান এর কাস্টমার সার্ভিস একটি  অত্যাবশকীয় অংশ যেখানে কাস্টমারদের সাথে

ইন্টারেক্ট করে তাদের সমস্যার সমাধান করা, প্রশ্নের উত্তর দেওয়া এবং তাদের এসিস্ট দেওয়ার প্রয়োজন পরে ।  যা আপনি

নিজের বাড়ি থেকে অর্থাৎ রিমোটলি এই কাজ করতে পারেন । এবং এর জন্য বিশেষ স্কিল বা দক্ষতারও প্রয়োজন না

See also  গ্রীন লাইন বাসের কাউন্টার নম্বর টিকিটের মূল্য ২০২৩ (Green Line)

থাকলেও হবে ।  তবে অবশ্যই যদি আপনার কমিউনিকেশন এবং প্রব্লেম সলভিং করার দক্ষতা থাকে সেই ক্ষেত্রে তা

আপনার জন্য অতিরিক্ত সুবিধা হবে ।  মেয়ে বা মহিলাদের জন্যও এটি অবশ্যই একটি ভালো কাজ । যেহেতু অনেক ক্লাইন্ট আছে যারা মহিলা কাস্টমার সাপোর্ট খুঁজে থাকেন ।

  ৯. ব্লগ বা কনটেন্ট রাইটিং

 আমরা অনেকেই আছি যাদের লেখা লেখি করতে খুবই ভালো লাগে ।  তো সেই ক্ষেত্রে আপনি কোন ব্লগ সাইট, ওয়েবসাইট

, সোশ্যাল মিডিয়া এবং আরো বিভিন্ন ক্ষেত্রে জন্য কনটেন্ট লেখার কাজ করতে পারেন ।  আপনার যদি নির্দিষ্ট কোনো বিষয়ে

বা সাবজেক্টে ইন্টারেস্ট থাকে তাহলে তা নিয়েও কনটেন্ট লেখার ফ্রিল্যান্স করতে পারেন ।  ফ্রিল্যাংসিং প্লাটফর্মে নতুনদের

জন্য ফ্রিল্যান্সিং কাজ হিসাবে অনেক চাহিদা আছে আর আপনি বহু সাবজেক্ট এর ওপরে  অনলাইন ওয়েবসাইট ও সোশ্যাল

মিডিয়া কনটেন্ট, ও ব্লগ পোস্ট এর জন্য কাজ পেয়ে যাবেন । আর স্বাভাবিক ভাবেই  এই ক্ষেত্রে কমিউনিকেশন ও লেখালেখি

ছাড়া আপনার যদি সেরকম কোন দক্ষতা না থাকে তারপর ও আপনি এটি করতে পারবেন খুব সহজেই। 

১০. ডাটা এন্ট্রি

 সহজ ফ্রিল্যান্স কাজ এর ক্যাটাগরির মধ্যে ডাটা এন্ট্রি অবশ্যই ১টি সরল জব। যা অধিকাংশই বিশেষ কোনো স্কিল ও পূর্ব কাজের

অভিজ্ঞতা ছাড়াও করতে পারে। কিন্তু ইহাকে লিস্টের শেষে রাখার কারণ হলো এর মার্কেটে চাহিদা বা ডিমান্ড অধিক থাকার জন্য

প্রতিযোগিতায় বেশ আছে। কিন্তু অবশ্যই আপনি চেষ্টা করার জন্য পারেন। এখানে আপনাকে ডকুমেন্টস বা অন্য কোনো

ফরম্যাটে থাকা ডাটা প্রদান করা হয়। যা ঠিক ভাবে ও গুছিয়ে কম্পিউটারে এন্ট্রি করতে হয়। ডাটা এন্ট্রি নানারকম রকমের

হয়ে থাকে। আর আপনি অতিশয় সহজেই রিমোটলি এই কাজ করে দেওয়ার জন্য পারবেন।

আমাদের সমাপ্ত কথা

তো প্রার্থনা করছি আজকের এই ১০টি নতুনদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং কাজ নিয়ে পোস্টটি আপনাদের বেশ ভালো লেগেছে।

এবং প্রার্থনা করছি এই পোস্ট হতে দরকারি তথ্য খুঁজে পেয়েছেন। আর সময় দিয়ে পোস্টটি পড়ার জন্যও অসংখ ধন্যবাদ।

আপনাদের যদি কোনো প্রশ্ন বা মন্তব্য থেকে থাকে তাহলে অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন আমি আপনাদের অবশ্যই

জবাব দেবো।এ জাতীয় আরো আর্টিকেল এর জন্য আমাদের সাইট ফলো করতে ভুলবেন না।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top